আগ্নেয়গিরির তলদেশে হবে বিটকয়েন সিটি

ডেস্ক রিপোর্ট

0 5

বিটকয়েনকে আইনি স্বীকৃতি (বৈধ বিনিময় মুদ্রা) দেওয়া বিশ্বের প্রথম দেশ এল সালভাদর এখন কনচাগুয়া আগ্নেয়গিরির তলদেশে একটি বিটকয়েন শহর তৈরি করার পরিকল্পনা করছে। নির্মাণ পরিকল্পনাধীন বিটকয়েন মাইনিংয়ের শক্তি যোগাতে আগ্নেয়গিরি থেকে ভূ-তাপীয় শক্তি (জিওথারমাল এনার্জি) ব্যবহার করার চিন্তা-ভাবনা চলছে। দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চল লা ইউনিয়নে এটি নির্মাণের কথা ভাবা হচ্ছে।

এল সালভাদরের রাষ্ট্রপতি নায়েব বুকেল শহরটি কবে নাগাদ নির্মাণ হবে তা জানাননি। তবে তিনি বলেন, এটির জন্য প্রায় তিন লাখ বিটকয়েন (১২.৯ বিলিয়ন পাউন্ড) খরচ হতে পারে।

‘বিশ্বের প্রথম দেশ হওয়ার’ জন্য এল সালভাদরের পদক্ষেপটি বড় ধরনের বিক্ষোভের সম্মুখীন হয়। যদিও রাষ্ট্রপতি বুকেলে ডিজিটাল মুদ্রার প্রতি দেশের প্রতিশ্রুতি দ্বিগুণ করতে প্রস্তুত।

বুকেল বলেন, নতুন বিটকয়েন শহরের মধ্যে কোনো আয়কর আরোপ করা হবে না। শুধুমাত্র মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) নেওয়া হবে। তিনি আরো বলেন, এই রাজস্ব থেকে অর্জিত মূল্যের অর্ধেক ‘শহর গড়ে তুলতে’ ব্যবহার করা হবে এবং বাকি অর্ধেক রাস্তাগুলো ‘পরিচ্ছন্ন ও পরিষ্কার’ রাখতে।

গত সেপ্টেম্বরে এল সালভাদর তার অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করতে বিটকয়েনের দিকে ঝুঁকেছিল। এটিকে (সঙ্গে মার্কিন ডলার) আইনি স্বীকৃতি দিয়েছিল। একটি নতুন ডিজিটাল ওয়ালেট অ্যাপ প্রকাশ করা হয়; যা প্রতিটি নাগরিকের জন্য ২২ পাউন্ড মূল্যের বিটকয়েনের সঙ্গে এর গ্রহণকে উৎসাহিত করে।

পাশাপাশি সারা দেশে ২০০টি নতুন ক্যাশ মেশিন স্থাপন করা হচ্ছে। সব লেনদেনেই বিটকয়েন নিতে বাধ্য করা হচ্ছে- যা দেশটিকে স্পষ্ট বিভক্তির পথে ঠেলে দিচ্ছে।

এই বিভাগের আরো খবর

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.