তিন বন্ধুর গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষে সাফল্যের কথা

মাহবুবার রহমান, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

0 18

রাজারহাটে তিন বন্ধু মিলে প্রথম বারের মতো গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষ করে ব্যাপক সফলতা অর্জন করেছে। উপজেলার মধ্যে এবারেই প্রথম নতুন জাতের এই তরমুজ চাষে ব্যাপক সাড়া পরেছে।

তরুণ উদ্যোক্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়,করোনার কারনে কলেজ বন্ধ। অন্য শিক্ষার্থীদের মতো অনেকদিন ধরে নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন রাজারহাট উপজেলার অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী তিন বন্ধু মাহমুদুল হাসান,নুরআলম সরকার এবং মনিরুল ইসলাম। এবারে তারা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে,কিছু সময় কৃষি কাজে ব্যয় করবে তারা। কি করা যায় চিন্তা ভাবনার একপর্যায়ে ইন্টারনেটের মাধ্যমে নতুন জাতের গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ সম্পর্কে জানতে পারে । পরে তিনজনে মিলে গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন হরিশ্বর তালুক মৌজায় ৪০শতাংস জমি লিজ গ্রহণ করে। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা ভিডিওতে গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষের পদ্ধতি দেখে তরমুজ বীজের অর্ডার করেন। এরপর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের সহযোগীতা নিয়ে তারা হলুদ বর্নের তরমুজ চাষ করে।

মাত্র ৬০ দিনেই ফলন হয় এই তরমুজের। বর্তমানে তরমুজ ক্ষেতের জাংলায় ঝুলছে শতশত গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ।

গত দু’দিন পূর্বে প্রথম পর্যায়ে তরমুজ কর্তন করেন তরুন চাষীরা। এসময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরে তাসনিম,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শম্পা আক্তার,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জুয়েল,উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আশিকুর ইসলাম সাবু,রাজারহাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ সহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র তরুণ উদ্যোক্তা নুর আলম সরকার বলেন,পড়াশোনার পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে প্ল্যান পরিবারের অর্থনৈতিক সচ্ছলতার জন্য কিছু করা দরকার। সেই চিন্তাভাবনা থেকে ভাবলাম যদি কৃষিতে ভালো প্রযুক্তি আনা যায় অনেক ভালো ফলন পাওয়া যাবে এবং উন্নত ফসলগুলো করা যাবে।এর প্রেক্ষিতে গবেষনা মূলক ভাবে আমরা তরমুজ চাষ করি ।

অপর তরুণ উদ্যোক্তা মাহবুবুল হাসান বলেন,আমরা তিন বন্ধু মিলে গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষাবাদ করেছি এবং আশানুরুপ সাফল্য অর্জন করছি। আমাদের পরবর্তী প্রজেক্টে আরো ভালো কিছু করবো।

উপজেলা কুষি কর্মকর্তা শম্পা বেগম বলেন,এটা জাত হলো গোল্ডেন ক্রাউন,পুষ্টিমান এবং স্বাধে মিষ্টতায় এটা বাজারের অন্যান্য তরমুজের থেকে দ্বিগুণ স্বাধ বিশিষ্ঠ। ইউটিউব ভিডিও ও কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের পরামর্শ নিয়ে তারা গোল্ডেন ক্রাউন নামক তরমুজ চাষ করেছে। প্রথমবারে তারা ৪০শতক জমিতে চাষাবাদ করে আশানুরুপ ফলন পেয়েছে তারা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরে তাসনিম জানান,রাজারহাট উপজেলায় প্রথমবারের মতো তিনজন তরুণ উদ্যোক্তার উদ্যোগে গোল্ডেন ক্রাউন জাতের তরমুজ চাষাবাদ হয়েছে। আমরা সরেজমিনে তাদের প্রথম হারভিষ্টিংয়ে সামিল হয়েছি। এখানে উৎপাদন যথেষ্ট ভালো হয়েছে এবং এলাকার মধ্যে ব্যাপক সারা পরেছে। স্থানীয় বাজারেও এটার যথেষ্ট চাহিদা রয়েছে। সকলের মতামত হচ্ছে এটা যথেষ্ট স্বাদ এবং পুষ্টিযুক্ত একটি ফল। আমরা আশা করছি এই তরুণ তিন উদ্যোক্তার পথ অনুসরন করে অন্যরাও এগিয়ে আসবে।

এই বিভাগের আরো খবর

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.