জুমার দিনের ফজিলত সম্পর্কে জানুন

ডেস্ক রিপোর্ট

0 5

আজ শুক্রবার। সপ্তাহের সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ ও মর্যাদাপূর্ণ একটি দিন। এই দিনের ফজিলত সম্পর্কে নির্ভরযোগ্য হাদিস গ্রন্থগুলোতে একাধিক হাদিস বর্ণিত হয়েছে। বিখ্যাত সাহাবি আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, সূর্য উদিত হওয়ার দিনগুলোর মধ্যে জুমার দিন সর্বোত্তম। এই দিনে আদম (আ.)-কে সৃষ্টি করা হয়াছে। এই দিনে তাঁকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয়েছে এবং এই দিনে তাঁকে জান্নাত থেকে বের করা হয়েছে। (মুসলিম, হাদিস : ৮৫৪)

জুমার দিন ফজিলতপূর্ণ একটি দিন। এই দিন অসংখ্য নেয়ামত নিয়ে আল্লাহ তায়াল ফেরেশতাদের বান্দাদের দুয়ারে পাঠান। শুক্রবার জুমার দিনে মাত্র পাঁচটি কাজের বিনিময়ে নিশ্চিত জান্নাতের ঘোষণা দিয়েছেন বিশ্বনবি। এ কাজ পাঁচটি করতে হবে জুমার দিন। কেননা কাজ পাঁচটির মধ্যে একটি হচ্ছে- জুমার নামাজ পড়া। সুতরাং জুমার নামাজ পড়ার বিষয়টি থেকে তা সুস্পষ্ট যে, বাকি ৪টি কাজও জুমআর দিন করতে হবে। তবেই হাদিসের ঘোষণা অনুযায়ী নিশ্চিত জান্নাত লাভ করবে মুমিন। হাদিসে এসেছে-

হজরত আবু সাঈদ খুদরি রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘এমন পাঁচটি কাজ আছে যে ব্যক্তি একই দিনে ওই পাঁচটি কাজ করবে; আল্লাহ তাআলা তাকে জান্নাতবাসী বলে লিখে দেবেন।’ আর তাহলো-

১. কেউ রোগাগ্রস্ত হলে তাকে দেখতে যাওয়া, তার সেবাযত্ন বা খোঁজ-খবর নেয়া।

২. কেউ মারা গেলে তার জানাজায় অংশগ্রহণ করা।

৩. এ দিন রোজা রাখা।

৪. জুমার নামাজ আদায় করা।

৫. গোলামমুক্ত করে দেয়া।’ (মুসলিম)

এই বিভাগের আরো খবর

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.