শিবগঞ্জে মাদক সেবীর লাশ উদ্ধার, স্বজনদের বিক্ষোভ

রবিউল ইসলাম রবি শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি

0 27
বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার  মহাস্থানে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালানোর সময় নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার ১৯ ঘন্টা পর এক মাদক সেবীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ নিয়ে স্বজনরা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পুলিশের তাড়া খেয়ে পালানোর সময়  মাদক সেবী মোস্তাফিজার রহমান মাসুম (৩৫) মহাস্থান এলাকায় করতোয়া নদীতে ঝাঁপ দেয়। প্রায় ১৯ ঘন্টা পর ভাসমান অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে এলাকাবাসী।

উক্ত ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে মৃত মাসুমের স্বজনরা ও এলাকাবাসী মরদেহ নিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করে  বিক্ষোভ করতে থাকে। পরে পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দিয়ে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য থানায় নিয়ে যায়।

এলাকাবাসী সূত্রে আরও জানা যায়, গত রবিবার বিকাল ৬টায় মহাস্থান প্রতাববাজু গ্রামে শিবগঞ্জ থানার পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযান চালায়। এ সময় মহাস্থান বারিদার পাড়া গ্রামের সাবেক বজলুর রহমানের পুত্র মোস্তাফিজার রহমান মাসুম মিয়া পুলিশকে দেখে ভয়ে দৌঁড় দেয়। পুলিশও তাকে তাড়া করে। এক সময় মহাস্থান করতোয়া নদীর ব্রিজের পূর্বপাশে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে মুহুর্তেই নিখোঁজ হয় মাসুম। পরে এলাকাবাসী তাঁকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস সিভিল ডিফেন্স এর অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হামিদুলের নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ১ঘন্টার উদ্ধারের তৎপরতা চালিয়ে তাকে না পেয়ে তারাও ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।

ঘটনার ১৯ ঘন্টাপর মৃত মোস্তাফিজার রহমান মাসুমের লাশ পাওয়া যায় ঘটনাস্থল থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে মহাস্থান বড়বাড়ী নামক স্থানে। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে এলাকাজুড়ে হাজার হাজার মানুষ মাসুমের লাশ দেখতে জড়ো হয় এবং বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে।

একপর্যায়ে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম বদিউজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ এসে অবরোধ কারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন, (বগুড়া সদর সার্কেল) সনাতন চক্রবর্তী, সদর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবির।

এবিষয়ে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান বলেন, মহাস্থান গ্রামে মাদক বিরোধী অভিযানে পুলিশকে দেখে মাদক, ছিনতাই ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রায় ৭টি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী মাসুম দৌঁড় দিয়ে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে মৃত্যুবরণ করেন। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য শজিমেকে প্রেরণ করা হয়েছে, ময়নাতদন্ত শেষে লাশটি স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।
এই বিভাগের আরো খবর
Loading...