শাহরুখের মায়ের চরিত্রের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন স্বরা

ডেস্ক রিপোর্ট

0 6

বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে থাকেন অভিনেত্রীরা। বিদ্যা বালানের মতো অভিনেত্রী প্রকাশ্যেই বহুবার বলেছেন শাহরুখের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ না পাওয়ার আক্ষেপের কথা। সবারই স্বপ্ন রোমান্স কিংয়ের নায়িকা হওয়ার।

তবে তার মা হওয়ার স্বপ্ন মনে হয় কোনো নায়িকা দেখেন না। অদ্ভূত সেই অফারটি পেয়েছিলেন শাহরুখ খানের চেয়ে বয়সে ছোট অভিনেত্রী স্বরা ভাস্কর। তাকে ‘জিরো’ ছবিতে শাহরুখের মায়ের চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব দেয়া হয়েছিলো। কিন্তু স্বরা ভাবতেও পারেননি তার থেকে দ্বিগুণ বয়সি শাহরুখের মায়ের চরিত্রে তাকে ভাবা হবে! বলার অপেক্ষা রাখে না সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন স্বরা।

এই তারকার জানা অজানা কিছু অধ্যায় নিয়ে লিখেছে আনন্দবাজার। সেখানে জানানো হয়েছে,
উচ্চশিক্ষিত স্বরা কাজ করেছেন কপিরাইটার হিসেবেও। একজন সুপরিচিত অভিনেত্রী। বলিউডে এসেছিলেন নায়িকা হতে। হয়ে গেলেন সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচিত তারকা। স্বরা ভাস্করের নামে অসংখ্যবার বয়কট ধ্বনি উঠেছে। নেটাগরিকরা সরব হয়েছেন তার বিরুদ্ধে বারবার। সব এড়িয়ে-সামলে টিকে আছেন তিনি। কাজ করে যাচ্ছেন আপন মনে।

নৌবাহিনীর আধিকারিক সি উদয় ভাস্করের মেয়ে স্বরার জন্ম ১৯৮৮ সালের ৯ এপ্রিল। তার মা ইরা ছিলেন জেএনইউ-এ ফিল্ম স্টাডিজের অধ্যাপিকা। দিল্লির সর্দার পটেল স্কুল থেকে পাশ করার পরে মিরান্ডা হাউস কলেজ থেকে ইংরেজি সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করেন স্বরা। পরে সোশিওলজি নিয়ে স্নাতকোত্তর করেন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

মেধাবী স্বরার বাবা মা নিশ্চিত ছিলেন, তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে যেতে চাইবেন। কিন্তু তাদের অবাক করে দিয়ে স্বরা জানালেন তিনি বলিউডের নায়িকা হতে চান। অভিনয়ের নেশা জন্মেছিল বিশ্ববিদ্যালয়তেই। সহপাঠীদের সঙ্গে তিনি অংশ নিতেন পথনাটিকায়। একইসঙ্গে অভিনয় ও সামাজিক বিভিন্ন বিষয়ে সরব হওয়ার সহজপাঠ সেখানেই।

বাবার আপত্তি ছিল মেয়ের সিদ্ধান্তে। মায়ের সম্মতি সঙ্গে করে ২০০৯ সালে স্বরা পা রেখেছিলেন মুম্বইয়ে। হাতখরচের জন্য তিনি প্রথমে একটি পত্রিকায় কপিরাইটারের চাকরি নেন। লোকাল ট্রেনে পৌঁছতেন অফিসে।

লেখালেখির পাশাপাশি শুরু হল অডিশন দেওয়া। কিন্তু অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই তিনি বুঝে গেলেন মঞ্চ এবং পর্দার অভিনেত্রী হওয়া এক নয়। রংচটা জিন্স এবং কুর্তা পরে অডিশন দিতে যেতেন তিনি। প্রত্যাখ্যাত হতে হতে বুঝে গেলেন পর্দার নায়িকা হওয়ার জন্য পোশাক ও মেকআপ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

দীর্ঘ চেষ্টার পরে স্বরার কাছে প্রথম সুযোগ আসে। ২০০৯-এ তিনি অভিনয় করেন ‘মাধোলাল কিপ ওয়াকিং’ ছবিতে। কিন্তু কবে এই ছবি মুক্তি পেল, কবেই বা হল থেকে চলে গেল, মনে রাখেননি কোনও দর্শক। স্বরার দ্বিতীয় ছবি ‘নিয়তি’ মুক্তিই পায়নি।

সঞ্জয় লীলা ভন্সালীর ছবি ‘গুজারিশ’-এ ছোট একটি ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন স্বরা। কিন্তু দর্শকমনে দাগ কাটতে পারেননি। পার্শ্বনায়িকা হিসেবে তিনি প্রথমে নজরে পড়েন ২০১১ সালে, ‘তনু ওয়েডস মনু’ ছবিতে। সুপারহিট এই ছবি তাকে সাহায্য করেছিল বলিউডে নিজের জায়গা পেতে।

পরিচিতির পাশাপাশি এই ছবি থেকে মনের মানুষকেও পান স্বরা। ছবির কাহিনিকার তথা চিত্রনাট্যকার হিমাংশু রায়ের প্রেমে পড়েন তিনি। লিভ ইনও শুরু করেন দু’জনে। এর পরে হিমাংশু যে ছবিতে কাজ করতেন, সেখানে দেখা যেত স্বরাকেও।

বর্তমানে অনেক ব্যস্ত অভিনেত্রীদের একজন স্বরা। তাকে দেখা যাবে সমকামী প্রেম নিয়ে আসন্ন ছবি ‘শীর কুর্মা’-য়।

এই বিভাগের আরো খবর
Loading...